শেখ হাসিনা তো একবারও আমার নাম নিল না!

শেখ হাসিনা তো একবারও আমার নাম নিল না!
Loading...

বর্তমানে খুবই খারাপ একটা সময় পার করছে বিএনপি। আর এর প্রধান কারনে দলের চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জেল। তার ওপর আবার অসুস্থ রয়েছেন তিনি। তবে দির দিন তাকে হাসপাতালে নেয়ার চেষ্টা করলেও তিনি রাজি হন নি। তবে অবশেষে তাকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বিএসএমএমইউ তে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দীর্ঘ আট মাস যাবৎ কারাগারে আছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। পুরান ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগারে খালেদা জিয়ার কক্ষে টেলিভিশন আছে কিন্তু সেখানে বিটিভি ছাড়া অন্য কিছু দেখার সুযোগ নেই। জাতিসংঘের ৭৩ তম সাধারণ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী অংশগ্রহণ বিষয়ে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় গতকাল বুধবার। আর এই সংবাদ সম্মেলন সরাসরি প্রচার করে বিটিভি। কারান্তরীণ বেগম খালেদা জিয়া সেই সংবাদ সম্মেলন দেখেছেন বলে জানিয়েছে কারাগার সূত্র।

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, আজ বৃহস্পতিবার সকালে কেন্দ্রীয় কারাগারের সিভিল সার্জন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাঁর কক্ষে যান। সেখানে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তাঁর টুকটাক কথাবার্তা হয়। খালেদা জিয়া এমনিতে ব্যক্তি হিসেবে স্বল্পভাষী। কিন্তু আজ সকালে চিকিৎসকের সঙ্গে কিছু কথাবার্তা বলতে দেখা যায় তাঁকে।

কথা প্রসঙ্গে সিভিল সার্জন বিএনপি চেয়ারপারসনকে জিজ্ঞেস করেন, গতকাল তিনি প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন দেখেছেন কি না। খালেদা জিয়া বলেন, তিনি প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য পুরোটাই শুনেছেন। কিন্তু একবারও শেখ হাসিনা তাঁর নাম উচ্চারণ করেননি বলে আক্ষেপ করেন খালেদা জিয়া।

সিভিল সার্জন বলেন, শেখ হাসিনা বলেছেন নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে। এ সময় খালেদা জিয়া বলেন, ক্ষমতায় থেকে কেউ কি নিরপেক্ষ নির্বাচন দেয়? তখন সিভিল সার্জন জানতে চান, ‘ম্যাডাম, আপনি তো ক্ষমতায় ছিলেন। তখন কি নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছিল?’ খালেদা জিয়া তখন বলেন, ‘আমি ক্ষমতায় ছিলাম তবে আমার সময় তো তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছিল।’

নিজে ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় নিরপেক্ষ নির্বাচন হওয়ার দাবি করলেও শেখ হাসিনার অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচনের সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন খালেদা জিয়া।

Loading...