যে ১০ টি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ শিখলে চাকরি নিশ্চিৎ

যে ১০ টি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ শিখলে চাকরি নিশ্চিৎ
Loading...

তথ্য প্রযুক্তি খাতে দক্ষতা থাকলে বেকার থাকার সম্ভাবনা থাকেনা। তাই যারা আগ্রহী এবং ধৈর্যশীল তাদের জন্য রয়েছে অপার সম্ভাবনা। উচ্চ আয় এবং স্মার্ট পেশা কে না চায়। তবে তথ্য প্রযুক্তি খাতে দক্ষতা থাকা সত্ত্বেও অনেকেই বিভ্রান্তিতে ভোগেন। তাদের জন্য সঠিক দিক নির্দেশনা ও সুবিধা দেবে এই দক্ষতাগুলো। কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ আছে যার চাহিদা কখনো কমেনা। উপরন্তু আপডেটেড ভাষা শিখতে এগুলো সম্পর্কেও জানতে হবে আগে। এরকম ১০ টি ভাষার কথা বলছি যা জানলে তথ্য প্রযুক্তি খাতে থাকবেন এগিয়ে। চাকরি সবসময় থাকবে হাতের নাগালে।

 ১। জাভা

জাভা এমন  একটি প্রোগ্রামিং ভাষা যা বহনযোগ্যতা, নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। তাছাড়া এটি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ও ওয়েব প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি পরিপূর্ণ সাপোর্ট হিসেবে কাজ করে। এ ভাষা ব্যবহার করে এখন মোবাইল প্লাটফর্ম অ্যান্ড্রয়েডের জন্য অ্যাপ্লিকেশন ও নানা রকম ব্যাবসায়িক সফটওয়্যার তৈরি করা যায়।

২। সি

৭০-এর দশকে কাজ করার সময় সি তৈরি করেন ডেনিস রিচি ও বেল ল্যাবে। । ভাষাটি তৈরির প্রথম উদ্দেশ্য ছিল ইউনিক্স অপারেটিং সিস্টেমের কোড লেখা। অচিরেই এটি একটি বহুল ব্যবহৃত ভাষায় পরিণত হয়। অনেক প্রোগ্রামিং ভাষার বেসিক হিসেবে এটি কাজ করে। এটির সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হচ্ছে এর পোর্ট্যাবিলিটি। এ ভাষা দিয়ে রচিত প্রোগ্রাম যে কোনও অপারেটিং সিস্টেমের কম্পিউটারে ব্যাবহার করা যায়।

৩। পাইথন

পাইথন হল উচ্চস্তরের প্রোগ্রামিং ভাষা। ১৯৯১ সালে গুইডো ভ্যান রস্যিউম এটি তৈরি করেন। এটি তৈরির সময় প্রোগ্রামের পঠনযোগ্যতার উপর বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এখানে প্রোগ্রামারের যাতে সহজে ও কম সময়ে বেশি কাজ করতে পারে সেদিকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

পাইথনের কোর সিনট্যাক্স ও সেমান্টিক্‌স অনেক সংক্ষিপ্ত। ভাষাটির স্ট্যান্ডার্ড লাইব্রেরি অনেক সমৃদ্ধ। যেসব বিখ্যাত প্রকল্পে পাইথন ব্যবহৃত হয়েছে তার মধ্যে জোপ অ্যাপ্লিকেশন সার্ভার, এমনেট ডিস্ট্রিবিউটেড ফাইল স্টোর, ইউটিউব ও মূল বিটটরেন্ট ক্লায়েন্ট উল্লেখযোগ্য।

যে সমস্ত বড় প্রতিষ্ঠান পাইথন ব্যবহার করে তাদের মধ্যে গুগল ও নাসা উল্লেখযোগ্য। তথ্য নিরাপত্তায় পাইথনে বহুবিধ ব্যবহার আছে। এর মধ্যে ইমিউনিটি সিকিউরিটির কিছু টুলস, কোর সিকিউরিটির কিছু টুলস, ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনের নিরাপত্তা স্ক্যানার ওয়াপিটি ও ফাজার টিএওএফ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

৪। পিএইচপি

পিএইচপি হচ্ছে দারুণ একটি স্ক্রিপ্টিং প্রোগ্রামিং ভাষা। এটি কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ক্ষমতাকে অন্তর্ভুক্ত করেছে ও স্ট্যান্ডআলোন গ্রাফিক্যাল আপ্লিকেশনকে ব্যবহার করতে সক্ষম।

পিএইচপি উদ্ভাবন করেন ১৯৯৫ সালে রাস্মুস লারডরফ । এটির বেশিরভাগ ওয়েব সার্ভার তৈরির কাজে ব্যাবহৃত হয়। এটি প্রায় সব অপারেটিং সিস্টেম ও অবস্থান ভেদে বিনামূল্যে ব্যাবহৃত হচ্ছে। উইকিপিডিয়ার তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে  প্রায় ২০ লাখের বেশি ওয়েবসাইট ও ১০ লাখ ওয়েব সার্ভারে পিএইচপি ব্যবহৃত হচ্ছে।

৫। ভিজুয়াল বেসিক

ভিজুয়াল বেসিকে সংক্ষেপে বলা হয় ভিবি। সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফট এ ভাষাকে বাজারে আনে পুরাতন বেসিক ভাষার উন্নত সংস্করণ হিসেবে ১৯৯১ সালে।

উইকিডিয়ার তথ্য অনুযায়ী, কম্পিউটারের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত প্রোগ্রামিং ভাষা এটি। এটি একটি পুরানো প্রোগ্রামিং ভাষায় হলেও বর্তমানে সময়ে এখনও এর ব্যবহার রয়েছে।

৬। জাভা স্ক্রিপ্ট

ওয়েবনির্ভর অ্যাপ্লিকেশন তৈরিতে জাভা স্ক্রিপ্ট প্রোগ্রামিং ভাষা অতুলনীয়। তবে এর সঙ্গে কিন্তু জাভার তেমন সম্পর্কে নেই। জাভা স্ক্রিপ্ট বিশ্বের জনপ্রিয় সাইটগুলোতে ব্যবহার হচ্ছে।

৭। আর

‘আর’ একটি উন্মুক্ত কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ভাষা, যা  মূলত পরিসংখ্যান বিষয়ক কাজের জন্য তৈরি করা হয়েছিল। এটি শুধু একটি প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজই নয়, একই সঙ্গে একটি পরিসংখ্যানিক প্যাকেজ ও ইন্টারপ্রেটারও। প্রথম দিকে শুধু পরিসংখ্যান বিষয়ক কাজের জন্য ’আর’ প্রোগ্রাম তৈরি করা হলেও এখন গ্রাফিকাল টেকনিকগুলো অত্যন্ত সহজে এ প্রোগ্রাম ব্যবহার করে করা যাচ্ছে এবং ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে।.

৮। গো

গুগল প্রোগ্রামিং ভাষা ‘গো’ ডেভেলপ করে । অন্যান্য অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড ল্যাংগুয়েজের মত এটির কাঠামো অনেক সরল। এখানে সাবক্লাসিংয় হয় না। এতে পাইথন ল্যাংগুয়েজের প্রভাব আছে। গুগল সবসময়ই পাইথনকে একটু বিশেষ গুরুত্ব দেয়।

৯। রুবি

হল এখন আরেকটি জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ভাষা। এটির মাধ্যমে ডেস্কটপ অ্যাপ ও ওয়েব অ্যাপ ডেভেলপ । এটির নানা জনপ্রিয় ফ্রেমওয়ার্ক কাজকে করে সহজ করে। এ ভাষার কোড মেইন্টেইন করাও সহজ। রুবিতে কোনো সেমিকোলন এর ব্যাবহার নেই। এটি হোয়াইট স্পেস ইন্ডিপেন্ডেন্ট। ব্রাকেটের ব্যাবহারও খুবই কম।

১০। সুইফট

সুইফট অ্যাপলের প্রোগ্রামিং ভাষা। এ ভাষা অবজেক্টিভ সি- এর চেয়েও দ্রুততার সাথে কাজ করে। এটি সহজেই শেখা যায় ।প্রোগ্রামাররা একই সময় কোড লিখে তার আউটপুট দেখতে পারেন এতে। সুইফট যেমন কম্পাইলড ল্যাঙ্গুয়েজের মতো শক্তিশালী ও ইফিশিয়েন্ট, তেমনি অন্য জনপ্রিয় ভাষার মতো সহজ ও ইন্টারঅ্যাকটিভ একটি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ।

Loading...