বাংলাদেশিদের জরুরি প্রয়োজনে চীনের অন অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা!

যেকোনও দেশের নাগরিককে অন্য দেশে যেতে হলে দরকার ভিসা। এটাই হলো ভ্রমণের অনুমতি। তবে কিছু দেশের পাসপোর্টধারীদের জন্য কয়েকটি দেশ ভিসামুক্ত কিংবা অন-অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা দিয়ে রেখেছে। এর অংশ হিসেবে নির্দিষ্ট দেশের বিমানবন্দর বা ইমিগ্রেশনে গিয়ে নির্ধারিত ফরম পূরণের মাধ্যমে পোর্ট এন্ট্রি করাতে হয়। একইসঙ্গে রাখতে হয় পাসপোর্ট আকারের ছবি ও পাসপোর্টের ফটোকপি।
Loading...

যেকোনও দেশের নাগরিককে অন্য দেশে যেতে হলে দরকার ভিসা। এটাই হলো ভ্রমণের অনুমতি। তবে কিছু দেশের পাসপোর্টধারীদের জন্য কয়েকটি দেশ ভিসামুক্ত কিংবা অন-অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা দিয়ে রেখেছে। এর অংশ হিসেবে নির্দিষ্ট দেশের বিমানবন্দর বা ইমিগ্রেশনে গিয়ে নির্ধারিত ফরম পূরণের মাধ্যমে পোর্ট এন্ট্রি করাতে হয়। একইসঙ্গে রাখতে হয় পাসপোর্ট আকারের ছবি ও পাসপোর্টের ফটোকপি।

বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য বেশকিছু দেশে অন-অ্যারাইভাল ভিসার ব্যবস্থারয়েছে। এ তালিকায় এবার যুক্ত হলো চীন। তবে এক্ষেত্রে কিছু আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করতে হবে ঢাকাতেই। এরপর সর্বোচ্চ ৩০ দিন ভিসামুক্ত থাকার অনুমতি মিলবে দেশটিতে।

ঢাকাস্থ চীনা দূতাবাসের একজন কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার (২২ নভেম্বর) বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, জরুরি প্রয়োজনেই কেবল বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা অন অ্যারাইভাল সুবিধা দেওয়া হবে। যেমন— মানবিক কারণ, ব্যবসা, কোনও কিছুর মেরামতের কাজ, পর্যটন ও অন্যান্য জরুরি কাজ।

চীনে ঘুরে বেড়ানোর জন্য যেতে চাইলে বাংলাদেশি পর্যটকদের চীনা ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমে সংঘটিত হতে হবে। ব্যবসা, মেরামতের কাজ কিংবা অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনের বেলায় চীনা প্রতিষ্ঠান থেকে আমন্ত্রণপত্র থাকা চাই। এগুলো সরবরাহ করতে পারলে পোর্ট ভিসার জন্য আবেদন করা যাবে।

বিশ্ব আর্থিক উপদেষ্টা সংস্থা অ্যারটন ক্যাপিটালের পাসপোর্ট ইনডেক্সের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশি পাসপোর্টধারীরা যেসব দেশে ভিসামুক্ত যাতায়াত করতে পারেন সেগুলো হলো— এশিয়ার ইন্দোনেশিয়া, ভুটান, প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ ফিজি, ক্যারিবীয় দেশ হাইতি (৯০ দিন), জ্যামাইকা, ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাকো, বারবাডোজ (১৮০ দিন), ডমিনিকা, বাহামা, গ্রেনাডা, সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস (৯০ দিন), সেন্ট ভিনসেন্ট অ্যান্ড দ্য গ্রেনাডিনস, আফ্রিকার গাম্বিয়া, লেসোথো, প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ মাইক্রোনেশিয়া ও ভানুয়াতু।

এছাড়া বাংলাদেশিদের ভিসা অন-অ্যারাইভাল সুবিধা দিচ্ছে এশিয়ার মালদ্বীপ, নেপাল, কম্বোডিয়া (৩০ দিন), টিমোর-লেস্ট, দক্ষিণ আমেরিকার বলিভিয়া (৯০ দিন/ই-ভিসা), আফ্রিকার মরিটানিয়া, মোজাম্বিক, সোমালিয়া (৩০ দিন), উগান্ডা (ই-ভিসা), রুয়ান্ডা (৩০ দিন/ই-ভিসা), মাদাগাস্কার, বেনিন, গিনিয়া-বিসাউ (ই-ভিসা), কেপ ভার্দে, কমোরোস, টোগো, প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ সামোয়া ও টুভালু।

Travelers of Bangladesh

Loading...