প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বসতে চায় কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বসতে চায় কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা
Loading...

সরকারি নিয়োগে বিদ্যমান অসামঞ্জস্য ও বৈষম্যমূলক কোটার যৌক্তিক সংস্কার চেয়ে সারা দেশের শিক্ষার্থীরা সাম্প্রতিক কয়েক বছর ধরে অান্দোলন করে অাসছে। এর অাগের অান্দোলনগুলোকে দমন-পীড়ন ও হয়রানি করে অল্প সময়ের মধ্যে বন্ধ করা গেলেও এবার তা করতে পারেনি সরকার। সর্বশেষ ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’এর পরিষদের নেতৃত্বে সারা দেশে এই বছরের ১৭ ই ফেব্রুয়ারি থেকে বেশ কৌশলি ও শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করে দেশ-বিদেশে অালোচনায় অাসে শিক্ষার্থীদের অান্দোলন।

যদিও সরকার ও ক্ষমতাসীনদল অাওয়ামীলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রতিনিধিদের সাথে এ পর্যন্ত ৪ বার অালোচনা হয়েছে কিন্তু দীর্ঘ ৬ মাসে ও তার কেনো সুষ্ঠসমাধান হয়নি। তাই অান্দোলনকারীরা এবার প্রধানমন্ত্রী সাথে বসতে চাচ্ছে। এ প্রসঙ্গে ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’ এর অন্যতম যুগ্নআহ্বায়ক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের ছাত্র নুরুল হক নুর বলেন, ‘সারা দেশের শিক্ষার্থীদের একটি যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত দাবি নিয়ে দীর্ঘ ৬ মাস অান্দোলন করার পরও আমরা রাষ্ট্রীয় নির্মম নির্যাতনের স্বীকার,

ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে মিডিয়াও সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে দেশের বিভিন্ন স্থানে আমাদের উপর হামলা করেছে,সরকার মিথ্যা ও সাজানো মামলায় পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার করালো, রিমান্ড দিল। কী অন্যায় করেছিলাম আমরা? আমরা কোনো অন্যায় করিনি’ দাবি করে নুর বলেন ‘যৌক্তিক ও ন্যায়সঙ্গত দাবি অাদায়ে একটি শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছি। তাই আমরা ছাত্রসমাজের পক্ষ থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অনুরোধ জানাবো,আপনি ছাত্রদের সাথে বসেন,তাদের কথা শোনেন।’ দাবি অাদায় না হলে সামনে কঠোর অান্দোলনের ও হুমকি দেন এই ছাত্রনেতা। নুর বলেন, ৬ মাস ধরে নির্যাতন-নীপীড়ন সহ্য করে আন্দোলন করছি, দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। আর কত সইবো?

Loading...