প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন স্থগিতের কারণ জানালেন সেতুমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন স্থগিতের কারণ জানালেন সেতুমন্ত্রী
Loading...

জানালেন সেতুমন্ত্রী – আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা নিয়ে প্রধানন্ত্রীর পূর্বনির্ধারিত সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করেছেন বলে জানান, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। নির্বাচন কমিশন বৃহস্পতিবার তফসিল ঘোষণা করবেন বলে জানানো হয়। এরপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার ওইদিনের পূর্বনির্ধারিত সংবাদ সম্মেলনটি স্থগিত করেন।

বুধবার রাতে গণভবনে বিএনএ (বাংলাদেশ ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স) সভাপতি ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার নেতৃত্বে বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক দল গণভবনে সংলাপে অংশ নেয়। সংলাপ শেষে এ কথা জানান সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতির ইতিহাসে ঐতিহাসিক সংলাপ অনুষ্ঠিত হলো। প্রধানমন্ত্রী নিজেই সংলাপে অংশ নিয়েছে, এটি বিরল ঘটনা।

এর আগে রাতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করা হয়।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব এহসানুল করিম সাংবাদিকদের জানান, অনিবার্য কারণবশত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। পরিবর্তিত তারিখ পরে জানিয়ে দেওয়া হবে।

আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে বহুল প্রত্যাশিত এই সংলাপ বুধবার রাতে ১৪ দলীয় জোট ও ২৫টি রাজনৈতিক দলের মধ্যে অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে।

গত ১ নভেম্বর ১৪ দল ও ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে সংলাপের মাধ্যমে এই সংলাপ শুরু হয়। বুধবার সকালে গণভবনে এই দুই জোটের মধ্যে দ্বিতীয় দফা সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।

ড. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বে যুক্তফ্রন্টের সঙ্গে ২ নভেম্বর, ১৪ দলীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে ৪ নভেম্বর এবং এইচ এম এরশাদের নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত জাতীয় জোটের সংলাপ ৫ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হয়।

অন্যদিকে ৬ নভেম্বর ১২টি উল্লেখযোগ্য ইসলামিক দল ও ৮টি বাম দলীয় মোর্চা বাম গণতান্ত্রিক জোটের সঙ্গে ১৪ দলীয় জোটের সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।

মঙ্গলবার গণভবনে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান, ৭ নভেম্বরের পর আর কোন সংলাপ অনুষ্ঠিত হবে না।

এ কেমন বাবা? নিজ মেয়েকে…

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) পানি শাখার কর্মচারী কাজী গোলাম মোস্তফা দশ থেকে বার লাখ টাকা পরিশোধ করতে না পেরে তার নিজের মেয়েকে হত্যা করে পাওনাদারদের ফাঁসানোর অভিযোগ আনার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় পিতাকে (গোলাম মোস্তফা)গ্রেফতার করে পুলিশ।

মঙ্গলবার সকালে মেয়ে সাবিয়া আক্তার অথৈকে (১১) নগরীর সদর রোডের অনামী লেনে বিসিসির পাম্প হাউজে নিয়ে বিষ খাইয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন তিনি। সাপানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন অথৈ।

পরে মরদেহে বোরখা পড়িয়ে সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নের সাপানিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংলগ্ন একটি লেবু বাগানে মরদেহ ফেলে রেখে যায়। পরে ময়নাতদন্ত শেষে অথৈর মরদেহ ওই দিনই তাদের পরিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

পুলিশ ওই হত্যাকাণ্ডের পর তাৎক্ষণিক কোনো ক্লু না পেলেও অথৈর বাবা বার বার তার পাওনাদারদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করছিলেন। পাওনাদারদের জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ ওই হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য না পাওয়ায় অথৈর বাবাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে। এক পর্যায়ে পাওয়ানারদের ফাঁসাতে মেয়ে অথৈকে হত্যার কথা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে গোলাম মোস্তফা।

বুধবার বেলা ১২টায় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ (বিএমপি) কমিশনার কার্যালয়ের হলরুমে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান বিএমপি কমিশনার মোশারফ হোসেন।

তবে মামলার তদন্তে স্বার্থে পাওনাদারদের নাম-পরিচয় জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন পুলিশ কমিশনার। এই হত্যার সাথে পরকীয়া প্রেম বা অন্য কিছুর সম্পর্কে নেই বলে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় নিহতের মা সোহেলী ইসলাম রুমা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে গতকাল মঙ্গলবার রাতে নগরীর কাউনিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এই মামলার সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার দেখিয়ে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণের জন্য আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে ‘মেয়েকে ধর্ষণ’ করতেন রতন

নরসিংদীর মাধবদীতে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে নিজের মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

৭ নভেম্বর, বুধবার মাধবদীর কাঁঠালিয়া ইউনিয়নের চৌগড়িয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

রতন মিয়া মাধবদী থানার কাঁঠালিয়া ইউনিয়নের চৌগড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পেশায় একজন রিকশাচালক।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, রতন মাদকাসক্ত আর তার স্ত্রী মানসিক প্রতিবন্ধী। মাদক সেবনকে কেন্দ্র করে স্ত্রীর সঙ্গে প্রায়ই ঝগড়া করতেন রতন মিয়া। এ নিয়ে স্বামীর সঙ্গে অভিমান করে প্রায়ই বাপের বাড়ি চলে যেতেন স্ত্রী। সেই সুযোগে ১৫ বছরের মেয়েকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করতেন রতন।

দিনের পর দিন বাবার অমানবিক নির্যাতন সইতে না পেরে খালার কাছে ঘটনা জানায় মেয়েটি। পরে নির্যাতিত মেয়েকে নিয়ে থানায় গিয়ে রতনের বিরুদ্ধে মামলা করেন খালা। মামলার পর বুধবার ভোরে অভিযান চালিয়ে রতনকে বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ান জানান, নির্যাতিত মেয়েটির খালা এ ঘটনায় মামলা করেছেন। মামলার পর অভিযান চালিয়ে রতন মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন তিনি। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এসএসসি পরীক্ষার্থীকে গণধর্ষণ করল ওরা ১১ জন!

এসএসসি পরিক্ষার্থী এক স্কুলছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী নওয়াববাড়ী লিচু বাগান ছাত্রাবাসে নিয়ে ১১ জন ছাত্র পালাক্রমে রাতভর গণধর্ষণ করেছে ওই এসএসসি পরীক্ষার্থী ছাত্রীকে।

গণধর্ষণের শিকার ওই শিক্ষার্থী ধনবাড়ী সরকারী নওয়াব ইনস্টিটিউশন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।

ন্যাক্কারজনক এ ঘটনায় বুধবার গণধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ১১ জনের বিরুদ্ধে ধনবাড়ী থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

ধনবাড়ী থানা পুলিশ ও ভুক্তভোগির পরিবার জানান, গত ২৭ অক্টোবর (শনিবার) ওই শিক্ষার্থীকে পরীক্ষার সাজেশন দেয়ার কথা বলে মোবাইলে ডেকে নিয়ে ধনবাড়ী নওয়াববাড়ী লিচু বাগান ছাত্রাবাসে নিয়ে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করা হয়।

পরদিন রবিবার সকালে মেয়েটিকে ধর্ষণের এ ঘটনা কাউকে না বলার হুমকি দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। ধর্ষণের এ ঘটনা কাউকে জানালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ঘটনার দৃশ্য ছেড়ে দেয়ারও হুমকি দেয়া হয়।

পরে মেয়েটি বাসায় গিয়ে তার বাবা-মায়ের কাছে পুরো ঘটনাটি খুলে বলে। এদিকে ধর্ষণের এ ঘটনাটি প্রভাবশালী মহলের চাপে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় আসামি পক্ষ।

অবশেষে বুধবার বিকেলে ধর্ষিতা ওই শিক্ষার্থীর বাবা পুলিশি পাহারায় ধনবাড়ী থানায় গিয়ে ১১ জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন। এদের মধ্যে ৭ জন ধনবাড়ী সরকারি নওয়াব ইনস্টিটিউশন উচ্চ বিদ্যালয়, ৩ জন ধনবাড়ী কলেজিয়েট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় এবং ১ জন ধনবাড়ী সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী বলে পুলিশ জানায়।

আসামিদের গ্রেফতারের স্বার্থে এর বেশি পরিচয় জানাতে অস্বীকৃতি জানায় থানা পুলিশ।

ধনবাড়ী থানার ওসি মজিবর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গণধর্ষণের ঘটনায় ভিকিটিমের বাবা বাদী হয়ে ধনবাড়ী নওয়াববাড়ী লিচু বাগান ছাত্রাবাসের ১১ জন শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছেন।

তিনি আরও জানান, ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে এবং ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য মেয়েটিকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Loading...