দেশে এলো ‘ফোর্টিনেট’র তৃতীয় প্রজন্মের নেটওয়ার্ক সুরক্ষা

দেশে এলো ‘ফোর্টিনেট’র তৃতীয় প্রজন্মের নেটওয়ার্ক সুরক্ষা
Loading...

‘ফোর্টিনেট’ এর তৃতীয় প্রজন্মের নেটওয়ার্ক সুরক্ষা বাংলাদেশে নিয়ে এলো প্রযুক্তিপণ্য সেবাদাতা ও পরিবেশক প্রতিষ্ঠান স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লি.।

স্মার্ট টেকনোলজিসের আয়োজনে মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ফোর্টিনেট এর সিকিউরিটি ফেব্রিক বিষয়ে এক নলেজ শেয়ারিং ফোরাম অনুষ্ঠিত হয়।

পার্টনার, কাস্টমার এবং সাংবাদিকদের নিয়ে আয়োজিত পৃথক সম্মেলনে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জটিলতম নেটওয়ার্ক থ্রেট ও এর সমাধান নিয়ে আলোচনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে দক্ষিণ এশিয়ায় ফোর্টিনেট-এর সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ারিং ডিরেক্টর মাইকেল জোসেফ এবং ভারতের আ লিক পরিচালক নাভিন মেহরা বর্তমান সময়ের বিভিন্ন সাইবার নিরাপত্তা এবং উদীয়মান সমস্যা বিষয়ে তাদের তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।

সংবাদ সম্মেলনে মাইকেল জোসেফ বলেন, ‌‘ডিজিটাল রূপান্তর নতুন অপারেটিং এবং পরিষেবা তৈরি করেছে। যা আইওটি, মোবাইল কম্পিউটিং এবং ক্লাউডভিত্তিক সেবা প্রযুক্তির মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের কাছে অনস্বীকার্য মূল্য সৃষ্টি করছে। যেহেতু, সাইবার ঝুঁকির গতি এবং ব্যাপ্তি ক্রমশ বেড়ে চলেছে, সেহেতু নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যেও একই ধরনের রূপান্তর আবশ্যক। এর জন্য প্রয়োজন সকল প্রকার ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে ইউজারদের চাহিদাগুলোকে অটোমেটেড বিজনেস রেসপন্স এ পরিণত করা। ’

মাইকেল জোসেফ আরও বলেন, ‘এই চিন্তা থেকেই ফোর্টিনেট নিয়ে এসেছে ফোর্টিওএস ৬.০ যাতে রয়েছে ২০০’র অধিক ফিচার এবং ক্ষমতা যা দিবে বিস্তৃত দৃশ্যমানতা, ইন্টিগ্রেটেড থ্রেট ইন্টালিজেন্স এবং অটোমেটেড রেসপন্স যা ডিজিটাল বানিজ্যের জন্য প্রয়োজন।’

ফোর্টিনেট সিকিউরিটি ফেব্রিক এমন একটি ইন্টিগ্রেটেড এবং অটোমেটেড সিকিউরিটি ফ্রেমওয়ার্ক যা বর্তমানের ডায়নামিক নেটওয়ার্কের নিরাপত্তা বিধানের উপযোগী করে প্রস্তুত করা হয়েছে। ফোর্টিনেট সিকিউরিটি ফেব্রিক ফোর্টিওএস ৬.০ দ্বারা চালিত যা পৃথিবীতে সর্বাধিক ব্যবহৃত নেটওয়ার্ক সিকিউরিটি অপারেটিং সিস্টেম।

এই সিস্টেম ব্যবহারের মাধ্যমে বৃহৎ প্রতিষ্ঠানগুলো সিকিউরিটি অপারেশন অটোমেশন ও এডভান্স প্রোটেকশনের এক নতুন মাত্রা উপভোগ করতে পারবে।

স্মার্ট টেকনোলজিস এর এন্টারপ্রাইজ বিজনেস ডিরেক্টর শাহেদ কামাল বলেন, ‘আমরা এখন একটি বর্ধিত কানেক্টিভিটির যুগে বাস করছি। আমাদের ব্যবহৃত ডিভাইসগুলো যেগুলো পূর্বে নেটওয়ার্ক এর আওতায় ছিল না সেগুলো খুব দ্রুত একটি আইটি ইকো সিস্টেমের ভেতর প্রবেশ করছে। এতে করে আমাদের সবকিছুই আগের চেয়ে সহজ হচ্ছে এবং নতুন উদ্ভাবনের ক্ষেত্র তৈরি হচ্ছে।’

শাহেদ কামাল আরও বলেন, ‘দিনশেষে সবকিছু নেটওয়ার্ক এর ভেতরে ঢুকে যাওয়ায় এডভান্স লেভেলের ঝুঁকিও বাড়ছে। এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানগুলো উদ্ভাবন এবং ঝুঁকি দুইয়ের মাঝখানে পড়ে নিজেদের ব্যবসায়িক সমৃদ্ধি হারাতে পারেন। তবে, এই উভয় সংকট নিরসনে ফোরর্টিনেট-এর অত্যধুনিক নেটওয়ার্ক সিকিউরিটি কাজ করবে বর্তমানের সকল ঝুঁকি প্রতিরোধ করে ভবিষ্যৎকে শক্তিশালী করবে।’

Loading...