চিরিরবন্দরে আমন ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিক

আমন ধানের বাম্পার ফলনের
Loading...

মোঃ মানিক- চিরিরবন্দর (দিনাজপুর)
আবহাওয়া অনুকুলে ভাল থাকায় বিভিন্ন ধরনের রোগ বালাই কম হওয়ায় দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলায় আমন ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিক দেখা দিয়েছে। চিরিরবন্দর উপজেলায় মূলত ধান উদ্ধত এলাকা। সরকারের কৃষি বান্ধব কর্মসূচী ও কৃষকের অক্লান্ত পরিশ্রমের উপজেলা কৃষি জমিতে আমন ধানের শোভা পাচ্ছে। আমন ধানে ধানে ভরে গেছে মাঠ। যতদূর চোখ যায় ততদূর মাঠে মাঠে হাওয়ায় দোল খাচ্ছে সোনালী ধানের শীষ।

চারদিকে মৌ মৌ গন্ধ আর ফসলী জমিতে আমন ধান দেখে কৃষকের মন আবেগে আপ্লুত হয়ে উঠেছে। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করলে কৃষকের হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম সার্থক হতে চলেছে। তাই তারা আগামীর স্বপ্নে বিভোর। এখন গৃহস্থ আর কৃষাণ-কৃষানিরা গোলা, খলা, আঙ্গিনা পরিষ্কার করার জন্য ব্যস্ত। চিরিরবন্দর উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে এবার আমন ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা করা হচ্ছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাসহ মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তারা সার্বাক্ষনিক তদারকি সহযোগিতা ও কৃষকদের সঠিক পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে। কিছু কিছু এলাকায় আগাম জাতের আমন ধান কাটামাড়া শুরু হলেও ২০/২৫ দিনের মধ্যে পুরোদমে আমন ধান কাটা-মাড়াই শুরু হবে। তখন গৃহস্থ, কৃষক-কৃষানিরা ব্যস্ত থাকবে। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায় উপজেলায় এবার আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২৩ হাজার ২ শত ৭৫হেক্টর জমিতে।

অর্জিত হয়েছে ২৩ হাজার ৩ শত ১০ হেক্টর জমিতে লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও অধিক পরিমাণ জমিতে আমন ফসল অর্জিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মাহমুদুুল হাসান জানান, আবহাওয়া অনুকুল পরিবেশ ভালো থাকায় আগের বছরের তুলনায় এ বছর আমন ধানের মাঠ ভালো অবস্থানে রয়েছে। রোগ-বালাই ও পোকার উপদ্রব প্রতরোধে কৃষকের করনীয় সম্পর্কে ধারনা ও পরামর্শ, উঠানে বৈঠক, ভিডিও প্রদর্শন। প্রতিটি ইউনিয়নে উপ-সহকারীরা মাঠ পর্যায়ে নিরলশ ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। এবারে আমন ধানের ফসলে বিভিন্ন রকমের রোগ-বালাই কম হওয়ায় কৃষকেরা স্ব- প্রনোদিত হয়ে বাড়তি জমিতে আমন ধানের চাষ করেছে, বিধায় উপজেলায় এবার আমন ধানের বাম্পার ফলনের আশাবাদী তিনি ।

Loading...