ইরানে হামলার নির্দেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প: নিউ ইয়র্ক টাইমস

ইরানে হামলার নির্দেশ দিয়েছিলেন ট্রাম্প: নিউ ইয়র্ক টাইমস

মার্কিন ড্রোন ভূপাতিতের ঘটনার প্রেক্ষিতে ইরানে সামরিক হামলার নির্দেশ দিয়েও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পিছিয়ে গেছেন বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস। এক প্রতিবেদনে তারা জানায়, রাডার ও মিসাইল ব্যাটারি লক্ষ্য করে সামরিক হামলার অনুমতি দিয়েছিলেন ট্রাম্প। প্রস্তুত ছিলো সামরিক বিমান ও জাহাজও। তবে শেষ মুহূর্তে অভিযান বাতিল করেন ট্রাম্প নিজেই। তবে এখনও হামলার পরিকল্পনা আছে কি না তা নিয়ে স্পষ্ট কিছু জানা যায়নি।  

২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোর সঙ্গে পরমাণু নিয়ন্ত্রণবিষয়ক একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে ইরান। বিনিময়ে দেশটির ওপর থেকে অর্থনৈতিক অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। কিন্তু গত বছর ইউরোপীয় মিত্রদের বাধা সত্ত্বেও ওই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যান যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পরে ইরানের ওপর তেল রফতানিসহ বিভিন্ন বিষয়ে একের পর এক অবরোধ আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। বর্তমানে এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা চলার মধ্যেই মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করার ঘটনা ঘটে।

ট্রাম্প প্রশাসনের সিনিয়র কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে নিউ ইয়র্ক টাইমস জানায়, শুক্রবার ভোরে এই হামলা চালানোর কথা ছিলো। বেসামরিক কিংবা সামরিক সদস্যরা টার্গেট ছিলা না। শুধু রাডার কিংবা ক্ষেপণাস্ত্র লক্ষ্য করে হামলা চালাতে চেয়েছিলো যুক্তরাষ্ট্র।

নিউ ইয়ক টাইমসকে এক কর্মকর্তা বলেন, সবগুলো বিমান ও জাহাজ প্রস্তুত ছিলো। কিন্তু কেউই হামলা চালায়নি। কারণ পরবর্তীতে সবাইকে থেমে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে হামলার পরিকল্পনা এখনও আছে কি না সেটা নিয়ে নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি।

ইরানে হামলা চালানো হলে এটা হতো মধ্যপ্রাচ্যে ট্রাম্পের তৃতীয় হামলা। এর আগে ২০১৭ ও ২০১৮ সালে সিরিয়ার সামরিক স্থাপনা লক্ষ্য করে হামলার নির্দেশ দিয়েছিলো ট্রাম্প প্রশাসন।

Comments

comments